ODF ফরম্যাটের ফাইল দেখুন মাইক্রোসফট অফিস থেকে

সবধরনের কম্পিউটার ব্যবহারকারীরাই অফিস স্যুট ব্যবহার করেন। এমন বহু ব্যবহারকারী আছেন যারা মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এবং পাওয়ার পয়েন্ট ছাড়া অন্য কোন অ্যাপলিকেশন ব্যবহার করেন না । তবে মাইক্রোসফট অফিস ছাড়াও আরও বেশ কিছু ভালোমানের অফিস স্যুট রয়েছে। যেমন ওপেন অফিস (openoffice.org)। ডিফল্ট ভাবে এটি ওয়ার্ড প্রসেসরে তৈরী ফাইলসমূহ .odt ফরম্যাটে সংরক্ষন করে। তবে odt ছাড়াও এটি দিয়ে doc ফরম্যাটের ফাইল তৈরী করা যায়। .odt আন্তর্জাতিক মুক্ত ডকুমেন্ট ফাইল ফরম্যাট হলেও এই ধরনের ফাইল সরাসরি মাইক্রোসফট অফিসে খোলা যায় না। তবে অন্য ফাইল খুলতে না পারা মাইক্রোসফট অফিসের নতুন কিছু নয়। যেমন docx ফাইল মাইক্রোসফটের তৈরী করা হলেও এটি ২০০৭ এর আগের কোন সংস্করণে পড়া যায় না।

মুক্ত ফরম্যাটের ডকুমেন্ট সমূহ মাইক্রোসফট অফিসের মাধ্যমে খোলার জন্য সান একটি প্লাগইন তৈরী বিস্তারিত পড়ুন

Advertisements

অফিস ২০০৭-এর ফাইল খুলুন আগের অফিসে

মাইক্রোসফটের অফিস ২০০৭এ বাহ্যিক বৈশিষ্ট্যের পরিবর্তন ছাড়াও এটি দিয়ে তৈরি করা ফাইলের ধরন কিছুটা পরিবর্তন করা হয়েছে। যেমন, ডকুমেন্ট ফাইলের ক্ষেত্রে এটি আগের *.doc ফাইলের পরিবর্তে *.docx এক্সটেনশনের ফাইল তৈরি করে থাকে। তবে এ ধরনের ফাইলগুলো মাইক্রোসফট অফিসের আগের সংস্করণে খোলা যায় না। এই ফরম্যাটের ফাইল খোলার বেশ কিছু বিকল্প পদ্ধতি রয়েছে। এর ফলে অফিস ২০০৭ সংস্করণের সফটওয়্যারটি ইনস্টল করা না থাকলেও ওই সব ফাইল খোলা যাবে এবং প্রয়োজনে সম্পাদনার কাজটিও করে নেওয়া যাবে।
এ ফাইলগুলো খুলতে অফিস ২০০৩, অফিস এক্সপির মতো অফিস ২০০৭এর আগের সংস্করণগুলোয় .docx ফরম্যাটের ফাইল খোলার জন্য মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে মাইক্রোসফট কমপিটিবিলিটি প্যাক নামের একটি সফটওয়্যার তৈরি করা হয়েছে। www.microsoft.com/downloads/ details.aspx?FamilyId=941B3470-3AE9-4AEE-8F43-C6BB74CD1466&displaylang=en ঠিকানার ওয়েবসাইট বিস্তারিত পড়ুন

উইন্ডোজ ৭


বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় কম্পিউটার অপারেটিং সিস্টেম মাইক্রোসফট উইন্ডোজের নতুন সংস্করণ প্রকাশ করা হয়েছে গত ২২ অক্টোবর,২০০৯ তারিখে। উইন্ডোজ ৭ নামের নতুন এই সংস্করণটি ব্যবহার করা যাবে ডেক্সটপ, ল্যাপটপ, নেটবুক, ট্যাবলেট পিসি এবং মিডিয়া সেন্টারের মত সকল পারসোনাল কম্পিউটারে। সরাসরি বলা না হলেও উইন্ডোজ ভিস্তার একটি উন্নত সংস্করণ হিসাবে প্রকাশ করা হয়েছে।

নতুন এই সংস্করনটিতে বেশ কিছু বৈশিষ্ট সংযোজন করা হয়েছে আবার পুরাতন অনেক বৈশিষ্টই এখানে খুজে পাওয়া যাবে না।

যেকোন কম্পিউটার প্রোগ্রামের জন্যই সঠিকভাবে চালু ও বন্ধ করা একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার এবং এই সময়ই সফটওয়্যারটি সম্পর্কে প্রথম ধারনা পাওয়া যায় । সেই দিকে লক্ষ্য রেখেই উইন্ডোজ বুট অপশনে বিশেষ পরিবর্তন আনা হয়েছে। নতুন বৈশিষ্টগুলির মধ্যে আরও রয়েছে একাধিক টাচ অপশন, উন্নত হার্ডওয়্যার রিকগনিশন, গ্রাফিক্স সমর্থন করা। উইন্ডোজ রিকভারী , ট্রাবলশ্যুটিং , ওয়ার্কস্পেস ও ব্যবহারকারী পরিচালনা করার ক্ষেত্রে নতুন কিছু অপশন দেয়া হয়েছে। সেই সাথে উইণ্ডোজ সিকিউরিটি সেন্টারকে করা হয়েছে আগের তুলনায় অনেক বেশী কার্যকর। উইন্ডোজ ৭ এর টাক্সবারের বাটন, কুইক লঞ্চ, ও জাম্প লিস্ট ব্যবহার করে প্রয়োজনীয় কাজগুলি আরও সহজভাবে করা যঅবে এখানে । তবে নতুন অনেক বৈশিষ্ট যোগ করা হলেও আগের অনেক অপশনই রাখা হয় নাই এখানে। বাদ পড়ার তালিকায় রয়েছেউইন্ডোজ ক্যালেন্ডার, উইন্ডোজ মেইল, উইন্ডোজ মুভি মেকার, উইন্ডোজ ফটো গ্যালারী ইত্যাদি । এর কোন কোনটি উইন্ডোজ লাইভ এসেনশিয়ালএর সাথে বিনামূল্যে পাওয়া যাবে আবার কোন কোন সুবিধা পেতে হলে ব্যবাহরকরীকে করতে হবে অতিরিক্ত বিস্তারিত পড়ুন