gcc compiler

GCC (GNU Compiler Collection) অনেকগুলা কম্পাইলারের সমন্বয়ে তৈরী একটি কম্পাইলার যার মাধ্যমে C, C++, Fortran, Java, Ada এর বেশ কয়েকটি প্রোগ্রামিং ভাষার সোর্সকোড কম্পাইল করা যায়। GNU Toolchain এর অন্যতম প্রধান অংশ হল GCC . GNU সিস্টেমের অফিসিয়াল এই কম্পাইলারটির নাম ছিল GNU C Compiler কারন এটি ১৯৮৭ সালে যখন এটি তৈরী করা হয় তখন এটি কেবল C প্রোগ্রামিং ভাষার জন্যই ব্যাবহার করা হত। পরবর্তীতে এটিকে C++, Objective C, Objective C++, Fortran, Pascal, Java, Ada ইত্যাদি প্রোগ্রামিং ভাষার উপযোগি করে তৈরী করা হয়। তাছাড়া Modula-2, Modula-3, Pascal, PL/I, D, Mercury, VHDL ইত্যাদির জন্যও এটি ব্যাবহার করা যাবে। GCC কোড গুলা ডিবাগ করার জন্যGNU Debugger ব্যাবহার করা হয়।


কিছু হেডার ফাইল সহ আরও কিছু দরকারী ফাইল ইনস্টল করতে হবে এই কাজ গুলা ঠিক ভাবে করার জন্য। ফাইল গুলা ইনস্টল করার জন্য Terminal ওপেন করে লিখতে বিস্তারিত পড়ুন

Advertisements

কমান্ড লাইন থেকে ক্যালকুলেটর তৈরী করা


লিনাক্স  বা  ম্যাক এর অনেক ব্যবহারকারী কামন্ড লাইন থেকে কাজ করতে বেশী অভ্যস্ত। সেখানে কাজ করার সময় যোগ বিয়োগ করার জন্য ক্যালকুলেটর ব্যবহারের প্রয়োজন হতে পারে। সেক্ষেত্রে নতুন একটি অ্যাপলিকেশন ওপেন করতে হবে। কিন্তু খুব সহজেই কমান্ড লাইন থেকে ব্যবহার করার জন্য ক্যালকুলেটর তৈরী করা যায়।  এর কাজটি করাতে হলে কমান্ড লাইনে একটি ফাংশন যুক্ত করে নিতে হয়। ফাইশনটি হল:-

calc(){ awk "BEGIN{ print $* }" ;}



কমান্ড লাইনে ওপেন করে প্রথমে এই ফাংশনটি লিখতে হবে।  এরপর বিস্তারিত পড়ুন

Twidge, কমান্ড লাইন Twitter ক্লায়েন্ট

twitterTwidge একটি টুইটার ডেক্সটপ ক্লায়েন্ট। এটি লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেমের উপযোগী এবং এটির বিশেষত্ব হল এটি কমান্ড লাইন থেকে ব্যবহার করতে হয়। কমান্ড লাইন থেকে ব্যবহার করতে হয় বলে এটি অনেক কম মেমরী ব্যবহার করে চালানো যায়। ওয়েবের টুইটারের সবগুলি সুবিধা এখানে ব্যবহার করা যায়।


Twidge
টুইটার ক্লায়েন্টের কিছু বৈশিষ্ট নিচে উল্লেখ করা হল

  • এটির ব্যবহার পদ্ধতি অনেক সহজ করা হয়েছে এবং সেই সাথে মূল টুইটারের সব বৈশিষ্ট রাখা হয়েছে।
  • টুইটারের এপিআই ব্যবহার করে এমন সকল মাইক্রোব্লগিং সাইটের ক্ষেত্রে এটি কাজ করবে
  • tinyurl.com ব্যবহার করে বড় আকারেরওয়েবসাইটের ঠিকান ছোট করে বিস্তারিত পড়ুন

টারমিনাল টুইক

টারমিনাল বা কমান্ড প্রম্পট অভিজ্ঞ ব্যবহারকরীদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয় এবং পছন্দের অ্যাপলিকেশন। যদিও নতুন ব্যবহারকরীরা এটি অনেকটাই ভয়ের জায়গা বলে মনে করেন। সাধারণভাবে এটি নিতান্তই একটি রসকসহীন একটি জায়গা যেখানে একটি কালো উইন্ডোতে শুধু লিখে যেতে হয় যার বিপরীতে আরও নতুন কিছু লেখা এসে হাজির হয় উইন্ডোতে।
তবে এটি এতটা বিরক্তিকর নয়। এবং এটি প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্নভাবে সাজিয়ে নেয়া যায়। এখনকার টারমিনাল গুলিতে এমনিতেই বিভিন্ন কাস্টমাইজেশনের সুবিধা দেয়া থাকে এর বাইরে বিশেষ কিছু অপশন দেখানো হচ্ছে।

নিচের এই পরিবর্তনগুলি আপনার টারমিনালে দেখতে চাইলে PS1= দিয়ে শুরু হওয়া লাইনগুলি সরাসরি কপি করে টারমিনালে পেস্ট করে দিন এবং স্থায়ীভাবে ব্যবহার করতে চাইলে ~/.bashrc ফাইলের শেষে লাইনটি যুক্ত করে দিন।

১.
এটি অন্যতম মজার টুইকগুলির একটি। টারমিনালে যতক্ষন সঠিক কমান্ড প্রয়োগ করা হবে ততক্ষন এটি একটি খুশি চেহারা দেখাবে কিন্তু যদি ভুল কমান্ড ব্যবহার করা হয় তবে এটি দুঃখী চেহারা দেখাবে।
কোড:

PS1=”\`if [ \$? = 0 ]; then echo \[\e[33m\]^_^\[\e[0m\]; else echo \[\e[31m\]O_O\[\e[0m\]; fi\`[\u@\h:\w]\\$ “

২.
এটি চালু থাকা অবস্থায় যদি কোন ভুল কমান্ড ব্যবহার করা হয় তে এটি কমান্ড প্রম্পটের রং পরিবর্তন করে বিস্তারিত পড়ুন