কোডাকে কু-ডাক

পেশাদার থেকে শখের, সব আলোকচিত্রীর কাছে কোডাক একটি পরিচিত নাম। ক্যামেরা, ফ্লিম, ফটোপেপারসহ ছবি তোলা সংস্লিষ্ট বিভিন্ন ধরনের পণ্য উৎপাদন করছে মার্কিন এই প্রতিষ্ঠানটি। বিংশ শতকে ফটোগ্রাফি ফিল্মের ক্ষেত্রে সবথেকে বেশি প্রভাবশালী ছিল এই প্রতিষ্ঠান। কোডাকের প্রতিষ্ঠাতা জর্জ ইস্টম্যান ১৮৮০ সালের দিকে ক্যামেরার ফিল্মকে রোল করে ব্যবহার করার জন্য পরীক্ষা করছিলেন। তিনি ১৮৮৯ সালে নিউ ইয়র্কের রচস্টারে “ইস্টম্যান কোডাক” নামের এই প্রতিষ্ঠানটি শুরু করেন। এই ফিল্মগুলো বিক্রির জন্য কোডাক খুব কম দামি একটি ক্যামেরা বের করে। এভাবে কোডাকের পরিধি বড় হতে থাকে। ১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠানের কর্মী সংখ্যা ছিল ১লক্ষ ৪৫ হাজারেরও বেশি। ১৯৬০ সালে যুক্তরাষ্ট্রর পাঠানো মহাকাশ যান চাঁদের কক্ষ পথ থেকে যে সকল ছবি তুলে এনেছিল সেগুলোর জন্য ব্যবহার করা হয়েছিল কোডাক ফ্লিম। এমনকি চাঁদের পৃষ্টে প্রথম অবতরণকারীর নিল আর্মস্ট্রং এর কাছেও ছিল একটি কোডাক ক্যামেরা। যা দিয়ে তিনি চাঁদের পৃষ্ঠের ছবি গুলো এনেছিলেন।  ১৯৭৬ এর সময়কালে যুক্তরাষ্ট্রের ৯০ ভাগ মার্কেট শেয়ার ছিল কোডাকের। ৮০র দশকে হলিউডের অধিকাংশ সিনেমা প্রিন্ট করা হত কোডাক ফিল্মে।

ফটোগ্রাফিকে জনপ্রিয় করার ক্ষেত্রে কোডাক যে সকল পদক্ষেপ নিয়েছিল অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানই এই ধরনের কাজ করতে পারেনি। কোডাক কোম্পানিটি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল ক্যামেরার ফিল্ম উৎপাদনের লক্ষ্যে। এবং তাদের উদ্ভাবিত প্রযুক্তির ফলে গত শতকে ফটোগ্রাফির ক্ষেত্রে একটি বিশাল পরিবর্তন এসেছে। কিন্তু ক্যামেরার ক্ষেত্রে ধিরে ধিরে ডিজিটাল প্রযুক্তি এবং ফিল্মের পরিবর্তে মেমরী কার্ডের ব্যবহার বাড়তে থাকে। কিন্তু কোডাক তাদের কার্যক্রম সেই অনুযায়ী পরিবর্তন করানি। এবং বিগত বছরগুলোতে তাদের ক্ষতির পারিমান বাড়তে থাকে, এবং গত ১৯ জানুয়ারী ২০১২ তারিখে সিটিগ্রুপের ১৮মাসের বকেয়া ৯৫০ মিলিয়ন ডলার পরিশোধ করতে না পারার জন্য তাদের কোডাক প্রতিষ্ঠানটিকে দেউলিয়া ঘোষনা করা হয়।

টাইমলাইন
১৮৮০ – জর্জ ইস্টম্যান, নিউ ইয়র্কের রচস্টারে কোডাক প্রতিষ্ঠা করেন
১৮৮৮ – সবার জন্য সহজে ব্যবহার উপযোগী ক্যামেরা উদ্ভাবন
১৮৯৬ – চলচিত্র শিল্পে ব্যবহার জন্য প্রথম ফিল্ম উৎপাদন
১৯০০ – ব্রাউনি নামের খুব কম মূল্যে একটি ক্যামেরা সবার জন্য বাজারে ছাড়া হয়, এটির মূল্য ছিল ১ডলার
১৯২৮ – প্রথম রঙ্গিন ফিল্ম
১৯৩২ – ইস্টম্যান অসুস্থ্য হয়ে যান, ৭৭জন আত্মহত্যা করে
১৯৩৫ – কোডাকক্রোম  তৈরী করা হয়। শুরুতেই সফল এটি
১৯৫৪ – টি-এক্স নামের আল্ট্রা ফাস্ট সাদাকালো ফিল্ম তৈরী
১৯৬১ – স্লাইড দেখার নতুন প্রজেক্টর উদ্ভাবন
১৯৬৩ – ৫কোটি পণ্য বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করে কোডাক
১৯৬৫ – সুপার ৮ ফিল্ম তৈরী শুরু
১৯৭৫ – প্রথম ডিজিটাল ক্যামেরার বাজারে আসে। কিন্তু কোডাক নতুন প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে চলতে ব্যার্থ্য হয়
২০১২ – কোডাক দেউলিয়া ঘোষনা করা হয়। ডোজোন্স একটি ব্লুচিপ কোম্পানি হিসাবে পরিচিত থাকলেও কোডাকের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে মানত্র ১৫কোটি টাকা।

 

প্রথম আলো, ২৭ জানুয়ারী ২০১২

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s