বাগেরহাট

bagerhat

বাগেরহাট বাংলাদেশের দক্ষিন পশ্চিম অংশের একটি জেলা । এটি খুলনা বিভাগের অন্তর্গত।
বাগেরহাট জেলার আয়তন ৩৯৫৯।১১ বর্গ কিলোমিটার। জেলার উত্তর পাশে রয়েছে গোপালগঞ্জ এবং নড়াইল জেলা এবং দক্ষিনের সম্পূর্ন অংশে রয়েছে বঙ্গপসাগর । এছাড়া পূর্বের জেলাগুলির মধ্যে রয়েছে গোপালগঞ্জ, পিরোজপুর, বরগুনা এবং খুলনা জেলা রয়েছে বাগেরহাটের পশ্চিম পাশে। বাগেরহেটের ভেতর দিয়ে বয়ে যাওয়া প্রধান নদীগুলির মধ্যে রয়েছে পাংগুচি, দারাতানা, মধুমতি, পশুর, মংলা, বালেশ্বর, বাংলা, গোষেরখালি ইত্যাদি।

বাগেরহাটকে বিভক্ত করা হয়েছে মোট ৯টি উপজেলা, ৭৭টি ইউনিয়ন পরিষদ, ১০৩১ টি গ্রাম , ৬৮৭টি মৌজা এবং ৩টি মিউনিসিপালিটি ২৭টি ওয়ার্ড এবং ৫৬টি মহল্লাতে। উপজেলাগুলির নাম হল : * বাগেরহাট সদর * কচুয়া * চিতলমারী * ফকিরহাট * মংলা * মোরেলগঞ্জ * মোল্লাহাট * রামপাল * শরণখোলা

জাতিসংঘের ঘোষনা অনুযায়ী বর্তমানে বাংলাদেশে মোট ৩টা বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান রয়েছে (তথ্যসূত্র)। যার মধ্যে ২টিই রয়েছে বাগেরহাট জেলাতে । প্রথমটা মসজিদের শহর বাগেরহাট (তথ্যসূত্র, ছবি) এবং দ্বিতীয়টা সুন্দরবন (তথ্যসূত্র, ছবি)। বাগেরহাট শহরকে ১৯৮৫ সালে এবং সুন্দরবনকে ১৯৯৭ সালে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসাবে ঘোষনা করা হয়। বাংলা উইকিপিডিয়া (bn.wikipedia.org) এবং ইংরেজি উইকিপিডিয়া(en.wikipedia.org) বাগেরহাট সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যাবে । এছাড়া অন্যন্য অনেক ভাষার উইকিপিডিয়ায় বাগেরহাট সম্পর্কে অনেক তথ্য পাওয়া গেছে।
Encyclopedia Britanica
বিশ্বকোষে বাগেরহাটের উপর নিবন্ধ থাকলেও তথ্য রয়েছে খুবই সামান্য পরিমানে(তথ্যসূত্র)। তবে মাইক্রোসফেটের তৈরী করা বিশ্বকোষ msn Encarta(encarta.msn.com) –এ বাগেরহাটের উপর কোন নিবন্ধ নাই । এমনকি বাংলাপিডিয়ার সাইটেও(www.banglapedia.org) বাগেরহাটের নিবন্ধ পাতাটি খালি রয়েছে।

বাগেরহাট শহরকে “মসজিদের শহর” বলা হয়। শহরটি বাগেরহাট জেলার দক্ষিন পশ্চিম অংশে অবস্থিত। ১৫ শতকের শুরুর দিকে তুর্কী সেনাপতি খান জাহান আলী এই শহরটি প্রতিষ্ঠা করেন । ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন এই শহরটি “খলিফাতাবাদ” নামে পরিচিত ছিল। পুরো শহরজুরে রয়েছে ইসলামিক মসজিদ ও ঐতিহ্যের বিভিন্ন নিদর্শন।

৫০টিও বেশী স্থাপনা চিহ্নিত করে ইউনেস্কো ১৯৮৫ সালে বাগেরহাট শহরকে বিশ্ব এতিহ্যের অংশ হিসাবে ঘোষনা করে। এই স্থাপনাগুলির মধ্যে রয়েছে ষাট গম্বুজ মসজিদ ,সিংড়ো মসজিদ ,বিবি বেগনীর মসজিদ , চুনখোলা মসজিদ, খান জাহান এর মাজার ইত্যাদি। মধ্যযুগে এদেশে মুসলিম শাষনের স্বাক্ষর বহন করে এই শহরটি।

বাগেরহাটের কিছু দর্শনীয় স্থানের নাম হল
*
বাগেরহাট শহর
*
ষাট গম্বুজ মসজিদ
*
সোনা মসজিদ
*
খান জাহানআলীর মাজার
*
খান জাহান আলীর দীঘি(খাঞ্জেলি দীঘি)
*
ঘোড়া দীঘি
*
অযোধ্যা মঠ
*
দূর্গাপূর শীবের মঠ
*
মংলা বন্দর
*
সুন্দরবন
*
রুপসা ব্রীজ

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s